বয়স বাড়লে হাসি কমে!

হাসি মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। মানুষ সাধারণত তার সুখ ও আনন্দের অনুভূতি প্রকাশ করে হাসির মাধ্যমে। তবে মানুষের এ হাসির ব্যাপারটি কিন্তু বয়স নিরপেক্ষ নয়। অর্থাৎ বয়স বাড়ার সাথে সাথে হাসির কমে যাওয়ার সম্পর্ক রয়েছে। অন্তত ব্রিটিশদের ক্ষেত্রে এটি সত্য ঘটনা। বিশ্বাস হচ্ছে না, তবে শুনুন সে দেশের একটি টিভি চ্যানেলের সমীক্ষার ফলাফল।

ডেভ নামের ওই টিভি চ্যানেলের সমীক্ষায় দেখা গেছে, পঞ্চাশোর্ধ ব্যক্তিরা অল্প বয়সী ব্যক্তিদের তুলনায় অনেক কম হাসেন। ৫২ বছরের বেশি ব্যক্তিরা হাসির মতো তেমন কিছু পান না। আর এ সময় থেকেই তারা রুক্ষ্মমেজাজি হতে শুরু করেন।

সমীক্ষায় দেখা যায়, একটি শিশু যেখানে দিনে প্রায় ৩০০ বার হাসে সেখানে একজন কিশোর-কিশোরী হাসে মাত্র ছয়বারের মতো। আর ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে হাসির পরিমাণ নিতান্তই কম, মাত্র ২.৫ বারের মতো।

২০০০ ব্রিটিশের ওপর চালানো এ জরিপে দেখা যায় পঞ্চাশোর্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে অভিযোগ করার প্রবণতাও বেশি। এছাড়া রুক্ষ্মমেজাজি হওয়ার এ মাত্রা নারীদের চেয়ে পুরুষের মধ্যে বেশি।

জরিপকারীরা মনে করেন, ব্রিটিশদের মধ্যে আমোদ-প্রমোদ কমে যাওয়ার একটি কারণ তাদের মধ্যে কৌতুক করার দক্ষতা কম। জরিপে দেখা যায় অধিকাংশ, ব্রিটিশ দুটির বেশি কৌতুক জানেন না।

সূত্র: রয়টার্স

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *