গাজার আল-সাফিয়া হাসপাতালে আহতদের ঢল

ফিলিস্তিনে সোমবার ইসরায়েলি বাহিনীর হামলায় নিহত হওয়ার ঘটনায় সবচেয়ে বড় ধকল সামলাতে হচ্ছে গাজার প্রধান হাসপাতাল আল-সাফিয়া হাসপাতালকে।

সংঘর্ষ শুরুর পর থেকেই রোগী ও শোকার্ত স্বজনদের ঢল নেমেছে ওই হাসপাতালে। জায়গা না পেয়ে আহত ব্যক্তিদের অনেকেই হাসপাতালের করিডরে আশ্রয় নিয়েছে।

তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের প্রতিবাদে বিক্ষোভে গাজায় ইসরায়েলে হামলায় মঙ্গলবার পর্যন্ত নিহত ব্যক্তির সংখ্যা ৬০ ছাড়িয়েছে।

২০১৪ সালের পর একদিনে এত ফিলিস্তিনি নিহত হওয়ার ঘটনা এই প্রথম। ফিলিস্তিনের কর্মকর্তারা বলেছেন, সহিংসতায় নিহত হওয়ার পাশাপাশি ২ হাজার ৭০০ জন আহত হয়েছেন।

এবার সংঘাত যে কতটা ভয়াবহ, তা দেখা যায় আল-সাফিয়া হাসপাতালে গিয়ে। সেখানে সাংবাদিকদের পাশাপাশি নিহত ও আহত ব্যক্তিদের স্বজনেরা জটলা পাকিয়ে অপেক্ষা করছেন।

সার্জনেরা যখন অস্ত্রোপচারকক্ষে একটার পর একটা অস্ত্রোপচারে ব্যস্ত, তখন করিডরে লাইন দিয়ে আছেন আরও অনেক আহত ব্যক্তি।

আল-সাফিয়ার জরুরি বিভাগ জানায়, হাসপাতালে অন্তত ১৮ জন মারা গেছে। হাসপাতালের সক্ষমতা যতটুকু, তার চেয়ে অনেক ছাড়িয়ে গেছে।

হাসপাতালটিতে ৫০০ জন রোগী ধারণ ক্ষমতা আছে। কিন্তু আহতের সংখ্যা অনেক বেশি হওয়ায় সংকুলান কঠিন হয়ে পড়েছে। আগত রোগীদের মধ্যে অধিকাংশই গোলাগুলি ও বিস্ফোরণের মাধ্যমে গুরুতর জখমের শিকার।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *