বিশ্বকাপের এক বছর আগেই অবসর নিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স (ভিডিও)

এক বছর পরই বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের এক বছর আগেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিচ্ছেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। বুধবার জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী ওয়ানডে ক্রিকেটে দ্রুততম সেঞ্চুরির মালিক ডি ভিলিয়ার্স।

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ৯৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও শেয়ার দিয়েছেন এবি। সেখানেই নিজের বিদায়ের কারণটা জানিয়েছে, ‘ক্লান্তি’। এছাড়া নিজের সিদ্ধান্তটা ব্যাখ্যা করেছেন সবার সুবিধার্থে।

ভিডিওবার্তায় তিনি বলেন,

‘এখন সময় এসেছে অন্যদের সুযোগ করে দেয়ার। আমি আমার খেলা খেলেছি এবং সত্যি বলছি, আমি ক্লান্ত।’

‘এটা খুব কঠিন সিদ্ধান্ত। আমি অনেক দীর্ঘ সময় নিয়ে এ নিয়ে ভেবেছি এবং ভালো ফর্মে থাকা অবস্থাতেই বিদায় নিতে চাচ্ছি। ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দারুণ দুটি সিরিজ জয়ের পর, আমার মনে হচ্ছে সরে দাঁড়ানোর এটাই সঠিক সময়।’

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে বেশ কয়েকটি সিরিজে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি বেছে বেছে খেলেছেন এই ক্রিকেটার। তবে এটা তার পছন্দ নয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

ডি ভিলিয়ার্স বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে বেছে বেছে খেলাটা ভাল লাগছিলো না। হয় আমি সব ফরম্যাটে খেলবো নতুবা কোনো ফরম্যাটেই খেলবো না। আমি আমার সতীর্থদের ধন্যবাদ জানাই, যাদের ছাড়া আমি এমন ক্রিকেটার হতে পারতাম না।’

বিশ্বজুড়ে মিস্টার ৩৬০ ডিগ্রী হিসেবে পরিচিত ডি ভিলিয়ার্স। উইকেটের চারিপাশে স্ট্রোক খেলার বিশেষ ক্ষমতা আছে তার। বিশেষত রিভার্স সুইপ অথবা হাঁটু গেড়ে ফাইন লেগের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকানোর ক্ষেত্রে বিশেষ পারদর্শী তিনি।

বোর্ড, কোচ, ও সতীর্থ খেলোয়ারদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘এত বছর ধরে আমাকে সমর্থন দেওয়ার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান বোর্ডের কোচ ও স্টাফদের কাছে কৃতজ্ঞ। ক্যারিয়ারজুড়ে যত সতীর্থ পেয়েছি, তাদের সবচেয়ে বেশি ধন্যবাদ। এতগুলো বছর যে সমর্থন পেয়েছি, সেটা না থাকলে আমি এর অর্ধেক ক্রিকেটারও হতে পারতাম না।’

দর্শকদের উদ্দেশ্যে এবি বলেন, ‘এটা অন্য কোথাও অর্থ উপার্জনের বিষয় নয়, এটা হলো ক্লান্তির ব্যাপার। এ ছাড়া আমার মনে হচ্ছে, এটাই সঠিক সময় সরে যাওয়ার। দক্ষিণ আফ্রিকা ও বিশ্বের সব ক্রিকেট ভক্তদের বলছি, আপনাদের দয়া ও ঔদার্যের জন্য ধন্যবাদ। আর আজ আমার ব্যাপারটা বোঝার জন্য ধন্যবাদ।’

ক্রিকেটে আধুনিক যুগের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ডি ভিলিয়ার্স। বিশ্বকাপের আগে তাঁর এমন সিদ্ধান্তে বিশ্বজুড়ে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে বিশেষ উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে তা নির্দ্বিধায় বলা যায়।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *