ঈদে ঘরমুখো মানুষের চলাচল স্বাভাবিক রাখতে প্রস্তুত ১৫০ লঞ্চ

পবিত্র ঈদুল ফিতরে ঘরমুখো মানুষের চলাচল স্বাভাবিক রাখতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের ভোগান্তি ও উপচেপড়া ভিড় রোধে লঞ্চগুলো রাখা হবে স্ট্যান্ডবাই। পাশাপাশি টার্মিনাল ও এর আশপাশে বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করা হবে। গতবারের মতো এবারও ঈদে নৌপথের যাত্রা হবে নিরাপদ ও আরামদায়ক’- এমনই আশা করছেন টার্মিনাল প্রশাসন।

সদরঘাট নৌ-টার্মিনালের ঈদ প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে গত রোববার সকালে সেখানে গেলে এ আশার বাণী শোনান দায়িত্বরত কর্মকর্তা, মালিক সমিতি ও কর্মচারীরা।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) যুগ্ম পরিচালক আরিফ উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা সবসময় চেষ্টা করি যাত্রীদের নিরাপদে স্বজনদের কাছে পৌঁছাতে। গতবারের মতো এবারও কোনো বিঘ্ন ছাড়াই যাত্রীরা তাদের গন্তব্যস্থলে যেন পৌঁছাতে পারে, সেজন্য নেয়া হচ্ছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। টার্মিনাল সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। রাস্তার যানজট এড়াতে টার্মিনালে যাত্রী ছাড়া কোনো যানবাহন প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।

ভাড়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন- ‘ঈদ উপলক্ষে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হবে না, সরকার নির্ধারিত ভাড়াই নেয়া হবে। বরং ঈদের মৌসুম ছাড়া অন্য সময় ভাড়া অনেক কম নেয়া হয়। তাই এ সময় যাত্রীরা মনে করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। কিন্তু মোটেও তা অতিরিক্ত নয়।

রোববার বিআইডব্লিউটিএর উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, সাধারণত প্রতিদিন গড়ে ৮০টি লঞ্চ চলাচল করে। ঈদ উপলক্ষে ২৫ রোজা থেকে স্পেশাল লঞ্চসহ প্রতিদিন ১৫০টি লঞ্চ চলবে। এছাড়া এক হাজার যাত্রী যেন টার্মিনালে অপেক্ষা করতে পারে সে ব্যবস্থাও থাকবে।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *