বডিগার্ডরা সবসময় কালো সানগ্লাস কেন পরে? – জেনে নিন

দেহরক্ষীরা সাধারণত চোখে কালো চশমা, পরনে কালো বা অন্য রঙের সাফারি স্যুট  এবং সুঠাম স্বাস্থ্যের অধিকারী হয়ে থাকেন। তাঁরা সবসময় ভিআইপি ব্যাক্তিদের ছায়াসঙ্গী হয়ে থাকেন। রূপোলি জগতের তারকা থেকে শুরু করে খেলোয়াড়, শিল্পপতি, রাজনৈতিক নেতা— হেভিওয়েট কর্তাব্যক্তিদের রক্ষায় এঁরা সব সময় তৈরি থাকেন।

খেয়াল করে দেখবেন, এই দেহরক্ষী বা বডিগার্ডেরা বেশিরভাগ সময়ই চোখে কালো চশমা পরে থাকেন। তারকাদের সঙ্গে কোন অনুষ্ঠানে হোক বা গুরুগম্ভীর রাজনৈতিক বৈঠক,  সভা, সেমিনার, সর্বত্রই দেহরক্ষীদের চোখে শোভা পায় কালো সানগ্লাস।

ফ্যাশন বা স্মার্ট দেখানোর জন্যই বডিগার্ডরা সানগ্লাস পরেন? একেবারেই না। এর পেছনে সুনির্দিষ্ট কারন আছে।

তাহলে জেনে নেয়া যাক দেহরক্ষীদের কালো চশমা পরার কারনঃ

  • অপরাধীর চোখকে ধুলো দিতেই এই বিশেষ ট্রিক ব্যবহার করেন দেহরক্ষীরা। সানগ্লাস থাকায় তাঁদের নজর ঠিক কোথায়, কাদের অনুসরণ করছে সেটা বোঝা সম্ভব হয় না। ফলে খুব সহজেই চারপাশে নজরদারি চালানো যায়।
  • ফ্ল্যাশ লাইট বা সূর্যরশ্মির হাত থেকে বাঁচতে কালো চশমা ব্যবহার করেন বডিগার্ডেরা। তাঁদের ফোকাস থাকে নিরাপত্তার দিকে, তাই কোন অবস্থাতেই এক মুহূর্তের জন্যও যাতে মনোসংযোগে বিচ্যুতি না ঘটে তাই এই ব্যবস্থা।
  • দেহরক্ষীদের প্রায়ই গুলির লড়াই বা বিস্ফোরণের মুখোমুখি হতে হয়। চোখের সুরক্ষার জন্যও সানগ্লাস ব্যবহার করেন দেহরক্ষীরা।
  • কালো চশমা পরলে বাইরের দুনিয়ার কাছে আবেগ লুকিয়ে রাখাও সম্ভব হয়।আর্মিদের মিশনেও সুরক্ষা চশমা দেয়া হয়।
  • যেকোন ধরনের আকস্মিক হামলায় মানুষের চোখ স্বভাবতই বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু, কালো চশমায় বিশেষ সুরক্ষা লেয়ার থাকায় দেহরক্ষীরা এই সময়ে চোখ খোলা রেখে আক্রমণের মোকাবিলা করতে পারেন। আক্রমণ আসার পর না থেমেই পাল্টা আক্রমণ করতে পারেন।
  • সূর্যের আলো ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের আলোর প্রতিচ্ছুরনের সময় এবং হঠাত আসা তীব্র আলোতে এই চশমা রক্ষীদের গতিবিধি সচল রাথতে সাহায্য করে।
  • একইসাথে নানাদিক থেকে আসা আক্রমণের মোকাবিলায় কালো চশমা সবচেয়ে বেশি উপকারী। বৈরী পরিবেশ, ধুলাবালি, তীব্র বাতাস ইত্যাদির বাঁধা অতিক্রম করে কর্তব্য পালনে সহায়তা করে।
  • অত্যাধুনিক কালো চশমার ভেতরের দিকে থাকে ধোঁয়া থেকে সুরক্ষার সেন্সর, যা বডিগার্ডদের ধোঁয়ার মধ্যেও একটিভ থাকতে সাহায্য করে। আর সামনের দিকে থাকে ক্রেচ-প্রুফ হার্ড রেজিস্টেন্স , যা চশমাটির সামনের দিককে ক্ষতির হাত থেকে সুরক্ষিত রাখে।

বডিগার্ডদের কালো চশমা পড়ার পেছনে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে নিরাপত্তার বিষয়টি। দেহরক্ষীর প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময়েই এই বিষয়ে সচেতন করে দেওয়া হয় তাঁদের।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *