তাঁরা তিন জনের ‘বুকের বা পাশে’

দর্শক হৃদয়ের গভীরে জায়গা করে নিল মিজানুর রহমান আরিয়ানের পরিচালনায় নাটক ‘বুকের বা পাশে’। সুন্দর গল্প আর নিপুণ অভিনয়শৈলীতে আরো একটি ভালোলাগার নাটক উপহার পেয়ে দর্শকদের উচ্ছ্বাস এখন সোশ্যাল মিডিয়ার সর্বত্রে।

‘বড় ছেলে’ নাটকে অনন্য অভিনয়শৈলী দেখিয়ে দর্শক হৃদয়ে গভীরভাবে জায়গা করে নিয়েছেন মেহজাবিন চৌধুরী। তাই তাঁর কাছ থেকে এবারের ঈদে দর্শকদের প্রত্যাশার জায়গাটাও ছিল অনেক বেশি। সেই জায়গা থেকে বলা যায় তিনি পুরোপুরি সফল হয়েছেন। ভালোবাসার প্রকৃত অনুভূতিকল্পে মনের রঙ দিয়ে সাজানো নারী- চরিত্রটিকে বেশ ভালোভাবেই ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন মেহজাবিন।

অন্যদিকে, দক্ষতা আর একনিষ্ঠতা দিয়ে দর্শকদের একের পর এক হার্টথ্রব নাটক উপহার দিয়ে যাচ্ছেন আফরান নিশো। সবার মধ্যেই একটা চাঞ্চল্য কাজ করছিল, এবারের ঈদে নিশো নিশ্চই আকর্শনীয় কিছু নিয়ে আসবেন। দর্শকদের হতাশ করেননি তিনি, বরং বলা যায় এসপেক্টেশনের জায়গাটা অনেকখানি মজবুত করেছেন তিনি। তাঁর বুকের বা পাশে রাখা হাতটি যেন প্রতিটি দর্শকের হৃদয়ের বা পাশে রাখা হাত। সে হাত অনেককিছু প্রকাশ করতে জানে; ভালোবাসতে জানে, ভালোবাসাকে বুকের বা পাশে চিরদিনের জন্য ধরে রাখতে জানে।

সেইসাথে, ভালোবাসার আবেগ-মথিত গানটি গেয়েছেন বর্তমান সময়ের সোশ্যাল মিডিয়ার ভাইরাল বয় মাহতিম সাকিব। শিল্পী হিসেবে মাহতিম অনেকটা অরিজিত সিং ঘরনার হলেও তাঁর জাদুকরী গানের গলা মুগ্ধ হবার মত। খুব অল্পদিনে নিজের জায়গাটিকে বেশ শক্তপোক্ত করে নিচ্ছেন সাকিব। ‘বুকের বা পাশে’ গানটি টেলিভিশন মিডিয়া থেকে শুরু করে প্রতিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

‘বুকের বা পাশে’ নাটকটি দেখে দর্শকরা স্মৃতির গভীরে নিজেদের হারিয়ে ফেলার অনুভূতি সোশ্যাল মিডিয়ার প্রতিটি স্তরে ছড়িয়ে দিচ্ছেন আবেগে গাঁথানো শব্দ ব্যঞ্জনায়। তাদের উচ্ছ্বাসই বলে দিচ্ছে নাটকটির সফলতা। তবে ব্যপকতাটা মূলত তাঁদের তিনজনকে ঘিরেই।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *