ক্লাসিকদের অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তন

জার্মান মানেই ক্লাসিক খেলা। জার্মানি মানেই শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়া, শেষ বাঁশি না-বাজা পর্যন্ত হাল না-ছাড়া। রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচেই স্বমহিমায় ফিরে এলো জার্মানি।

প্রথম ম্যাচে জার্মানির খেলার গতিটা যেন হারিয়ে গিয়েছিল। আসলে যে দু’জনের জন্য বিশ্ব-ফুটবলে জার্মানির শাসক হয়ে ওঠা, তাঁরা কেউ দলে নেই। প্রথম জন ফিলিপ লাম অবসর নিয়েছেন চার বছর আগে ব্রাজিল বিশ্বকাপে দেশকে চ্যাম্পিয়ন করে। আর একজন বাস্তিয়ান সোয়াইনস্টাইগার ফুটবলকে বিদায় না জানালেও জাতীয় দল থেকে অবসর নিয়েছেন। এঁদের বিকল্প এখনও খুঁজে পাননি লো। শনিবার জয়ের সঙ্গে সেই গতিও অনেকখানি ফিরল জার্মানির খেলায়।

জার্মানদের আধিপত্য দেখানোর ম্যাচে সবাইকে চমকে দিয়ে ৩২ মিনিটে তোইভোনেনের গোলে এগিয়ে যায় সুইডেন। মাঝমাঠে টনি ক্রুসের ভুল পাসে ক্লাসেনের ডান পাশ থেকে বাড়ানো ক্রসে ডি বক্সের ভেতর তোইভোনেন নয়্যারের মাথার উপর দিয়ে ট্যাপ ইনে দুর্দান্ত শটে সুইডেনের হয়ে অবিস্মরণীয় গোলটি করেন তিনি।

৩৯ মিনিটে সমতায় ফেরার সুযোগ পেয়েছিল জার্মানি। গুন্দোগানের দূরপাল্লার শট রুখে দেন সুইডিশ গোলরক্ষক।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ম্যাচে ফিরে জোয়াকিম লোর শিষ্যরা। ৪৮ মিনিটে দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে মাঠে নামা মারিও গোমের বাড়ানো বলে বা পায়ের আলতো ছোঁয়ায় বিশ্বকাপে জার্মানির হয়ে প্রথম গোলটি করেন মার্ক রয়েস।

এরপর খেলায় বেশ কয়েকবার সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি কোন দল। অতিরিক্ত সময়ের দুই মিনিটের মাথায় ব্রান্ডটের দূরপাল্লার বা পায়ের শট গোলবারে লেগে ফিরে আসলেও আশাহত হয় জার্মানরা।

৯৫ মিনিটে ডি বক্সের সামান্য বাইরে ফ্রি কিক পায় জার্মানি। সেই ফ্রি কিক থেকে দুর্দান্ত গোল করে জার্মানিকে অবিস্মরণীয় এক জয় এনে দেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা টনি ক্রুস।

গোল করে জার্মানিকে

যে কোনও মুহূর্তে ছবিটা বদলে যেতে পারে, এমন প্রত্যাশায় ছিল বিশ্বফুটবল। বাস্তবে সেটাই হল। শেষ বাঁশি বাজার ঠিক ৫ সেকেন্ড আগে দুর্দান্ত বাঁকানো শটে অবিশ্বাস্য গোলে জার্মানিকে নিশ্চিত ড্র থেকে বাঁচিয়ে দিলেন টনি। ২-১ গোলের জয়ে শেষ ষোল’র স্বপ্ন উজ্জ্বল হলো গতবারের চ্যাম্পিয়নদের।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *