মহাজোটে আসন ভাগাভাগি

মহাজোটে যুক্ত হওয়ার লক্ষ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কাছ থেকে ৭০টি আসন চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তালিকা দিয়েছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। তবে দর-কষাকষি করে ঢাকা মহানগরীতে ৬টিসহ ৪০ থেকে ৪৫টি আসনে ছাড় পাওয়ার প্রকৃত টার্গেট নির্ধারণ করেছে দলটি। যদিও জাপার দায়িত্বশীল নেতাদের দাবি, তারা কমপক্ষে ৫০টি আসন পেতে চান। আর বিকল্পধারা বাংলাদেশ ও দলটির নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের পক্ষ থেকে ২২ আসন চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাতে তালিকা দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে বিকল্পধারার টার্গেট অন্তত ১০টি আসন পাওয়া।

আসন ভাগাভাগি নিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে নিজ দল-জোটের পক্ষে লিয়াজোঁ করছেন, জাপার ও বিকল্পধারার এমন সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল একাধিক নেতা ইত্তেফাককে জানান, উভয় দল-জোটকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘মুখ দেখে কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হবে না। এলাকায় যারা জনপ্রিয়, প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে যারা জিতে আসতে পারবেন-এমন লোকদেরই মনোনয়ন দেওয়া হবে।’ এক্ষেত্রে আসন ওয়ারি দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জরিপের রিপোর্টও বিবেচনায় নেওয়া হবে বলে জাপা ও বিকল্পধারার নেতাদের জানিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ১৪ দল ও মহাজোটের শরিকদের সঙ্গে আসন বণ্টনের বিষয়ে ইতোমধ্যে মৌখিক সমঝোতা হয়েছে। আগামী রবিবারের মধ্যে মহাজোটের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত হতে পারে। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, প্রথমদিকে সিদ্ধান্ত ছিল জাপাকে ২৫ থেকে ৩০টি আসনে ছাড় দেওয়ার। তবে গত কয়েকদিনের ব্যবধানে এই সংখ্যা ধীরলয়ে বাড়ছে। একই সমীকরণ বিকল্পধারা কিংবা যুক্তফ্রন্টের ক্ষেত্রেও। আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত ছিল- যুক্তফ্রন্টকে ৩ থেকে সর্বোচ্চ ৫টি আসন ছাড়ার। তবে বিকল্পধারার নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের একাধিক নেতা ইত্তেফাককে জানান, সংখ্যা আরও বাড়বে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত প্রাপ্ত সর্বশেষ খবরাখবর অনুযায়ী, আসন নিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাপার ও বিকল্পধারার দর-কষাকষি চলমান।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *