ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে দাবি করে আদালতে পাকিস্তানি নারী

লাহোরের বাসিন্দা আম্মারা মাজহার নামের এক নারীর দাবি, তিনি নাকি ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে। কোনও পালিত বা অবৈধ নয়। ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিয়ে করা স্ত্রীর গর্ভজাত সন্তান। এ নিয়ে পাকিস্তানের একাধিক সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এরইমধ্যে, আম্মারা মাজহার নিজের প্রতি সুবিচার পেতে এবং যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যেতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। লাহোর হাইকোর্টে আবেদন করেছেন। প্রয়োজনে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টেও যাবেন বলে তিনি জানান। তার আবেদনকে আদালত গুরুত্ব সহকারে নিয়েছে।

আদালতকে তিনি জানান, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম স্ত্রী ইভানা ট্রাম্পের সন্তান তিনি। ইভানা তাকে নিয়ে খুব উদাসীন ছিলেন।

ট্রাম্পের মেয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাকিস্তানে কীভাবে এলো? এমন প্রশ্নের জবাবে আম্মারা বলেন, তিনি সে দেশেই জন্মেছিলেন আর ওই দেশেই কেটেছে তার শৈশব। তাকে অপহরণ করে পাকিস্তানে নিয়ে আসা হয়েছে। তারপর থেকে তিনি লাহোরে রয়েছেন।

তবে আম্মারা সম্পর্কে পাকিস্তানের এক চিকিৎসক বলেন, মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণে ভুল কথা বলছেন ওই নারী। তার মস্তিষ্ক পাকিস্তানের বাইরে নানা জায়গায় ঘুরছে। তেমনই একটি হচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই ট্রাম্পকে নিয়ে এসব কথা বলছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম স্ত্রী ইভানা ট্রাম্পের সাথে ১৯৯২ সালে ডোনাল ট্রাম্পের দাম্পত্য জীবন ভেঙ্গে যায়। সবশেষ ২০০৫ সালে মেলানিয়াকে বিয়ে করেন ট্রাম্প।

 

 

অারো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *